Home / National / বাঘাবাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ১০ কোটি টাকার ক্ষতি

বাঘাবাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ১০ কোটি টাকার ক্ষতি

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ি ওয়েল ডিপোর পাশে সোমবার রাত সোয়া ১১টার দিকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আগুনে গ্যাস সিলিন্ডার, লুব্রিকেটিং ওয়েল, মোটরপার্স ও ব্যাটারি, রানার চুলা, টায়ারসহ ৮টি দোকান, ২টি বাড়ি, ২টি ট্যাংকলরি, ৫টি পিকাপভ্যান ও ৩টি মোটরসাইকেল ভষ্মীভূত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, ব্যবসায়ীরা দিনভর বেচা-কেনা শেষে রাত ১০টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যায়। রাত সোয়া ১১টার দিকে পথচারীরা দেখতে পায় রুমি মোটর্সের গ্যাসের দোকানে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে আগুন নিভাতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

ফায়ার সাভিসের গাড়ি আসার আগেই এ আগুন আশপাশের দোকান ও বাড়িঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া এ আগুনে দোকানের সামনে পার্কিং করে রাখা ২টি ট্যাংলরি, ৫টি পিকআপভ্যান ও ৩টি মোটরসাইকেল পুড়ে যায়। মুহূর্তে আগুনের লেলিহান শিখা ২০-৩০ ফুট উপরে উঠে যায়।

এছাড়া ১০-১২টি গ্যাস সিলিন্ডার একের পর এক বিষ্ফোরিত হয়ে প্রায় ৩০-৪০ ফুট উপরে উঠে বিকট শব্দে ফেটে পড়ে। এ বিকট শব্দে আতংকিত হয়ে আগুন নিভাতে আশা শত শত মানুষ এলাকা ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে দৌড়ে পালায়। এর মধ্যে বাঘবাড়ি নৌবন্দর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ শুরু করে।

শাহজাদপুর, উল্লাপাড়া ও বেড়া ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা এসে ৭টি ইউনিটের মাধ্যমে একযোগে ফোম ও পানি ব্যবহার করে পৌনে ৩ ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ সময় এলাকাবাসী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের কাজে সহযোগিতা করে। এ অগ্নিকাণ্ডের সময় বগুড়া-নগরবাড়ি মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে প্রায় ৩ ঘণ্টাব্যাপী ২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ঢাকা-পাবনাগামী যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

রুমি মোটর্সের মালিক আবুল কাশেম ও তার মেয়ের জামাতা আব্দুল হালিম বলেন, আমরা বেচা-বিক্রি শেষে দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যাওয়ার পর এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। এতে আমাদের ৫টি দোকানের সব মালামাল পুড়ে গেছে। এতে আমাদের প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমরা পথে বসে গেছি। এছাড়া অন্যান্য দোকান, বাড়ি, গাড়ি ও মোটরসাইকেল মিলে আরো ৫ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নাশকতার অভিযোগে ব্যবসায়ী আবুল কাশেম বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ অভিযোগের পর ও পুলিশ ঘটনা তদন্তে মাঠে নেমেছে বলে জানা গেছে।

শাহজাদপুর উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার রেজাউল করিম ও বাঘাবাড়ি নৌবন্দর ফায়ার সার্ভির স্টেশন অফিসার মিনহাজুল ইসলাম জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে কাজ শুরু করি। পৌনে ৩ ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

মঙ্গলবার দুপুরে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে তাদের সমবেদনা জানান।

তিনি বলেন, নির্বাচিত হলে বাঘাবাড়ি নৌবন্দরের ব্যবসায়ীদের জানমাল রক্ষায় বাঘাবাড়ি নৌবন্দর ফায়ার সার্ভিসকে আরো আধুনিকায়ন করা হবে। বাঘাবাড়ি নৌবন্দর ও এ বাণিজ্যিক এলাকারও ব্যাপক উন্নয়ন করা হবে।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন শাহজাদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান শফি, কেন্দ্রীয় যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য আসাদুল্লাহ তুষার প্রমুখ।

About admin

Check Also

আমি আওয়ামী লীগ ছাড়লেও বঙ্গবন্ধুকে ছাড়ি নাই: কাদের সিদ্দিকী

একাত্তরে স্বাধীনতার মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি, এবং তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *